Tuesday , November 13 2018
Breaking News
cricket news

ক্রিকেট খেলায় যে মাঠে কেউ অলআউট হয় না!

নেলসনের স্যাক্সটন ওভালের ইতিহাস খুব বেশি দিনের নয়। ২০১৪ সালের ৪ জানুয়ারি নিউজিল্যান্ড-ওয়েস্ট ইন্ডিজ ম্যাচ দিয়ে আন্তর্জাতিক ভেন্যুর তালিকায় নাম উঠেছিল এই মাঠের। এই মাঠেই সবচেয়ে বেশি রান তাড়া করে জিতেছিল বাংলাদেশ। ২০১৫ বিশ্বকাপে এখানে স্কটল্যান্ডের ৩১৮ রান তাড়া করে ৬ উইকেটে জিতেছিল মাশরাফি-সাকিবরা। বাংলাদেশের গৌরব-স্মৃতি ছড়িয়ে থাকা স্যাক্সটন ওভালের একটি তথ্য সবাইকে চমকে দেওয়ার জন্য যথেষ্ট—এখানে এখনো পর্যন্ত অনুষ্ঠিত সাতটি ম্যাচে অলআউট হওয়ার ঘটনা মাত্র একবার।
স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে বাংলাদেশের ম্যাচটি ছিল স্যাক্সটনে অনুষ্ঠিত তৃতীয় ওয়ানডে। সে ম্যাচে টসে জিতে স্কটল্যান্ডকে ব্যাটিংয়ে পাঠিয়েছিলেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। কিন্তু স্কটল্যান্ড ৮ উইকেটে ৩১৮ রান তুলে ভাবনায় ফেলে দিয়েছিল তাঁকে। বাংলাদেশ অবশ্য ৩১৮ রান তাড়া করেছিল দারুণভাবেই। ফিফটি করেছিলেন বাংলাদেশের চার ব্যাটসম্যান—৫ রানের জন্য সেঞ্চুরি মিস করে তামিম করেছিলেন ৯৫। ফিফটি করেছিলেন মাহমুদউল্লাহ, মুশফিকুর রহিম ও সাকিব আল হাসান (অপরাজিত)। সাব্বির রহমান করেছিলেন অপরাজিত ৪২। বাংলাদেশ উইকেট হারিয়েছিল মাত্র ৪টি।
স্যাক্সটন ওভালে অনুষ্ঠিত ম্যাচগুলোর ফল আসেনি মাত্র একটিতে। বৃষ্টির কারণে পরিত্যক্ত হয়েছিল নিউজিল্যান্ড-শ্রীলঙ্কার ম্যাচটি। ফল হওয়া ৫টি ম্যাচেই হেরেছে আগে ব্যাট করা দল। এই মাঠে যে রান তাড়া করা বেশ সহজ, সেটির সবচেয়ে বড় উদাহরণ বাংলাদেশ-স্কটল্যান্ড ম্যাচটি।
স্যাক্সটন ওভালে ফল হওয়া ম্যাচগুলোর মধ্যে সর্বনিম্ন রান ১৩৪। এটির পেছনে বৃষ্টিকে ‘দায়ী’ করা যায়। আগে ব্যাটিং করা নিউজিল্যান্ড তোলে ৬ উইকেটে ২৮৫ রান। বৃষ্টিবাধায় ডাকওয়ার্থ লুইস পদ্ধতিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সামনে লক্ষ্য দাঁড়ায় ৩৩.৪ ওভারে ১৯৩ রান। ৫ উইকেট হারিয়ে ক্যারিবীয়রা তুলতে পারে ১৩৪ রান।
এই মাঠে ৩০০-এর বেশি স্কোর হয়েছে চারটি—এর মধ্যে বাংলাদেশের ৩২২ রানটাই সর্বোচ্চ। বাংলাদেশ ছাড়াও ৩০০ পেরিয়েছে স্কটল্যান্ড, আয়ারল্যান্ড ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ। নেলসনে অলআউট হওয়া একমাত্র দল শ্রীলঙ্কা। ২০১৫ সালের ২০ জানুয়ারি নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে অলআউট হওয়ার আগে লঙ্কানদের রানও কিন্তু কম নয়—২৭৬। কালও স্যাক্সটন ওভালে যে প্রচুর রান অপেক্ষা করছে, না বললেও চলছে।

আমাদেরকে অনুপ্রনিত করতে আপনার সুন্দর একটি মন্তব্যই যথেষ্ঠ

About H.M Mohiuddin

I am a professional web developer and social media marketing expert!

Check Also

‘ভালোভাবেই ফিরবে মোস্তাফিজ’

বাংলাদেশ দল কাল দুপুরে অনুশীলন করল দুই পর্বে। শুরুতে বিসিবি একাডেমি মাঠে গা গরম ও …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

9 + 5 =